1. admin@shikhatvlive.com : shikhatvlive.com :
শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ০১:৪২ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
শিরোনামঃ

একজন নেতাকে নেতৃত্বের গুণাবলী থাকা আবশ্যক।

  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৩ মার্চ, ২০২১
  • ১৫৯ বার পড়া হয়েছে

 

একজন নেতাকে অবশ্যই কত গুলো মানবিক গুনাবলীতে গুনান্বিত হতে হয়।
সে গুলো নিম্নরূপঃ-
১. একজন আদর্শ নেতা বেছে নিনঃ
বিশ্বের সব নেতাই ভিন্ন গুণের অধিকারী। একেক জনের একেকটি গুণ আপনাকে মুগ্ধ করবে। তাদের মধ্য থেকে পছন্দসই একজনকে আপনার আদর্শ হিসেবে বেছে নিন। তিনি কীভাবে তার প্রতিদিনের কর্মপরিকল্পনা ঠিক করতেন এবং চ্যালেঞ্জসমূহের মোকাবেলা করতেন তা জানার চেষ্টা করুন।
২. ইতিবাচক হোনঃ
সব বিষয়ে নেতিবাচক হলে কোনো কাজে সফলতা দেখবেন না। সবকিছু ব্যর্থতায় ডুবে যাবে। অন্যদিকে, সবকিছুর মধ্যে ইতিবাচক কিছু বের করার চেষ্টা করলে সমস্যার সমাধান বের হয়। আর নেতা হিসেবে সব সমস্যার মোকাবেলা করতে হলে ইতিবাচক হতে হবে।
৩. নতুন ধারণাকে উৎসাহ দেওয়াঃ
নেতা হওয়া মানে এই নয় যে সব কথা আপনাকেই বলতে হবে এবং আপনার পরিকল্পনাই শেষ কথা। কারণ এতে নতুন এবং উদ্ভাবনী কিছু ধামাচাপা পড়ে যাবে। অন্য যে কেউ নতুন কোনো ধারণা দিতে পারে। তাই নতুন ধ্যান-ধারণাকে উৎসাহিত করতে হবে এবং এ জন্য একত্রে বসে চিন্তার ঝড় তোলাটা ব্যাপক কাজে দিবে।
৪. সিদ্ধান্তে পরিষ্কার থাকুনঃ
কোনো বিষয়ে আপনার নেতৃত্ব প্রয়োজন। সেক্ষেত্রে দোটানা নিয়ে তাতে যুক্ত হবেন না। পরিষ্কার সিদ্ধান্ত নিন এবং নিজেকে নেতা মনে করে হাল ধরুন। মনে সংকল্প থাকতে হবে যে, অর্পিত দায়িত্ব আপনাকে পালন করতে হবে। তবেই ভালো নেতা হওয়া যায়।
৫. সবার কাছাকাছি থাকুনঃ
একজন নেতা সারাদিন অফিসে বসে থাকেন কাজ নিয়ে। কিন্তু যাদের নেতা তিনি হয়েছেন তারা তাদের নেতার দর্শন চাইলেও পান না। এটি নেতৃত্বের গুণ নয়। নেতাকে তার অধীনস্তদের কাছাকাছি থাকতে হবে। অথবা যারা আপনাকে নেতা বলে মনে করেন তাদের মনে হতে হবে যে, নেতা সব সময় তাদের কাছেই রয়েছেন এবং তাকে চাইলেও কাছে পাওয়া যাবে।
৬. ভালো কাজের পুরষ্কার দিনঃ
ভালো কাজকে পুরষ্কৃত করা নেতৃত্বের বিশেষ একটি গুণ। এতে উপকারী এবং ভালো কাজকে উৎসাহিত করা হয়। তা ছাড়া যে কেউ তার ভালো কাজের স্বীকৃতি পেতে চায় তার নেতার কাছে থেকে। এ ক্ষেত্রে ছোট একটু প্রশংসাই অনেক বড় পুরষ্কার হয়ে দেখা দিতে পারে।
৭. সেন্স অব হিউমার থাকতে হবেঃ
আপনি যতো বড় নেতাই হোন না কেনো, আপনার মধ্যে সাধারণ রসবোধ বা সেন্স অব হিউমার থাকতে হবে। আপনি সমস্যায় জর্জরিত থাকতে পারেন, সামনে অন্ধকার দেখতে পারেন, কিন্তু সামান্য কৌতুকবোধ আপনার ব্যক্তিত্বকে সবার মাঝে উজ্জ্বল করে তুলতে পারে। সেন্স অব হিউমার মানুষের বড় একটি গুণ। এটি শুধু নিজেকে নয়, আশপাশের সবাইকে অনুপ্রাণিত করে। যাদের নেতৃত্ব আপনি দিচ্ছেন তাদেরকে আশাবাদী করে রাখতে এবং উদ্যোমী করতে নেতার সামান্য সেন্স অব হিউমার অনেক কার্যকর।
আরও হতে হবে/থাকতে হবেঃ-
১। আত্নপ্রত্যয়ীঃ নিজের প্রতি অগাধ বিশ্বাসী হতে হবে।
২। উপস্থিত বুদ্ধিঃ তাৎক্ষনিক পরিস্থিতিকে মোকাবেলা করার জন্য উপস্থিত বুদ্ধি থাকতে হবে।
৩। সহনশীলতাঃ সহকর্মীদের দোষত্রুটি ক্ষমা ও সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার ক্ষমতা।
৪। বুদ্ধিমত্তাঃ একজন নেতাকে তার আয়ত্বাধীন যে কোন সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিতে হবে।
৫। নিঃস্বার্থঃ আত্নত্যাগী ও নিঃস্বার্থ বাদী হতে হবে।
৬। সামাজিক সচেতনতাঃ সমাজবদ্ধ মানুষের মাঝে সামাজিক সচেতন বোধ বৃদ্ধি করতে হবে।
৭। দক্ষতাঃ দক্ষ ও অভিজ্ঞ হতে হবে যা একজন নেতার অন্যতম গুন।
৮। নেতৃত্বদানের ক্ষমতাঃ সংগঠনের জনবলকে পরিচালনা করার ক্ষমতা থাকতে হবে।
৯। পেশাগত জ্ঞানঃ প্রত্যেক নেতাকে তার পেশাগত জ্ঞান সম্পন্ন হতে হবে।
১০। সাহসীঃএকজন নেতার অন্যতম ধর্ম,ভয় ভীতি এ মনকি সর্ব প্রকার প্রতিবন্ধকতা দুর করার ক্ষমতা থাকতে হবে।
১১। কার্যসম্পাদনের উপযোগীঃ কাজের প্রতি আগ্রহী।
১২। মানসিক ও দৈহিক সুস্থ্যতাঃ মেধা ও মন সুস্থ্য ও সাবলীল হতে হবে।
১৩। উত্তম শ্রোতাঃ একজন নেতাকে উত্তম শ্রোতা হতে হবে।
১৪। বিবেকঃ একজন নেতাকে অবশ্যই বিবেক বান হতে হবে।
১৫। সাধুতাঃ সৎ চরিত্র ও নৈতিক আচরনের অধিকারী হতে হবে।
১৬। আনুগত্যঃ দেশ,ইউনিট উর্দ্ধতন ও অধিন্যস্তদের প্রতি আনুগত্য পোষন করতে হবে।
১৭। বিচার ক্ষমতাঃবিভিন্ন রকম পরিবেশ ও পরিস্থিতিকে মোকাবেলা করে ন্যায় বিচার করার ক্ষমতা থাকতে হবে।
১৮। দায়িত্ব শীলঃ দায়িত্ব শীল হতে হবে।
১৯। বিয়ারিংঃ একজন নেতাকে আশু প্রয়োজন বলিষ্ঠ চরিত্র, পোষাক আশাকে মার্জিত ও রুচিশীল ভাব এবং বিনয়ী হতে হবে।
২০। উদারতাঃ নেতার অন্যতম গুন উদারতা সহকর্মীদের প্রতি উদারভাব থাকতে হবে।
২১। কুট কৌশলীঃ তীক্ষ্ণ ও সুক্ষ কৌশলী হতে হবে।
২২। চরিত্রে কঠোরতা ও কোমলতার মিশ্রনঃ শারিরীক ও মানসিক ভাব দুঃখ ক্লান্তি,চাপ ও কঠোরতা দূর করার ক্ষমতা।
২৩। উদ্দীপনাঃ কর্তব্য পালনে উৎসাহ ও আগ্রহ প্রকাশ।
২৪। দূরদৃষ্টিঃ যে কোন অবস্থার পূর্বাভাস বুঝার ক্ষমতা থাকতে হবে।
২৫। সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতাঃ একজন নেতাকে সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা থাকতে হবে।
২৬। তীক্ষ বুদ্ধি সম্পন্নঃ একজন নেতাকে তীক্ষ্ণ বুদ্ধি সম্পন্ন হতে হবে।
২৭। নিরপেক্ষতাঃ নিরপেক্ষতা থাকতে হবে একজন নেতাকে তাতে কাজের মান উন্নত হবে।
২৮। স্পষ্টভাষীঃ সহজ সরল প্রকাশ ভঙ্গি হবে যা সহজে সবাই বুঝতে পারে।
২৯। নিয়মানুবর্তিতাঃ সময় জ্ঞান সম্পন্ন ব্যক্তি হতে পারে নেতা।
উপরোক্ত গুণের অধিকারী ব্যক্তিই হতে পারে একজন সুদক্ষ ও সুপরিচিত নেতা।

ধন্যবাদান্তে
মোঃ আলাল উদ্দীন
মানবতা সম্পাদক
বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক সমিতি
কেন্দ্রীয় কমিটি

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি ।